বৃহস্পতিবার , জানুয়ারি ২০ ২০২২
Home / জাতীয় / শ্রীপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ অনুষ্ঠিত।

শ্রীপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ অনুষ্ঠিত।

শ্রীপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ গাজীপুর

 

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক, ৭ই মার্চের উৎফুল্ল জনতার হৃদয়ের কবি লাল সবুজের পতাকা ও সবুজ বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করতে ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগষ্ট ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাসায় মধ্যরাতে কিছু সামরিক বাহিনীর লোক সহ ঘাতকের দলেরা নির্মমভাবে রাতের আঁধারে গুলি করে হত্যা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ দেশে থাকা পরিবারের সকলকেই। ঘাতকেরা ছাড়েনি ছোট্ট রাসেলকেও! ঐসময়ে দেশের বাহিরে অবস্থান করায় বেচে যায় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্য শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা। সেই শোকের মাস রক্তাক্ত আগষ্ট!

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গাজীপুর জেলার শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সহ পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে

গাজীপুর ইউনিয়ন জাতীয় শোক দিবস উৎযাপন কমিটির উদ্যোগে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

আজ ২৯ ই আগষ্ট রোজ রবিবার সকাল ১০ঃ০০টার সময় উপজেলার ২নং গাজীপুর ইউনিয়নের ধনুয়া হাজী মার্কেট এলাকায় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক, গাজীপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ (সা- যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক) ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আমিনুল ইসলামের উপস্থিতিতে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় জনাব আমিনুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন শোকাবহ বেদনাদায়ক আগষ্ট বাঙালি জাতির ইতিহাসের এক কলঙ্কিত অধ্যায়। এই মাসেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি মহান নেতা তৎকালীন সাত বর্তমান আঠারো কোটি বাঙালির হৃদয়ের স্পন্দন বাংলাদেশের স্থপতি ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানেকে সপরিবারে হত্যা করে তৎকালীন সেনাবাহিনী কিছু অসাধু কর্মকর্তারা যার নেতৃত্ব দিয়েছেন তৎকালীন সেনাপ্রধান মেজর জিয়া।
ওই সময় ছোট্ট নিষ্পাপ রাসেলকেও ওরা চেয়েছিল বাংলাদেশটা গিলে খেতে ওরা জানতো বঙ্গবন্ধু বেচে থাকলে তা সম্ভব নয় তাই এই মহান নেতাকে সপরিবারে হত্যা করে। তখন তার দুই সন্তান (মেয়ে) শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা দেশের বাহিরে অবস্থান করায় প্রাণে বেচে যায়। কিন্তু ইতিহাস ধ্বংসে লিপ্ত থাকা সেই হায়েনা মুস্তাক বাহিনী থেমে ছিলোনা ২০০৪ সালে এই আগষ্ট মাসেই ২১ তারিখে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে বর্তমান বাংলাদেশের কর্ণধার মানবতার মা আমার নেত্রী শেখ হাসিনাকে পৃথিবী থেকে চিরতরে নিশ্চুপ করে দিতে চেয়েছিল। যার মাস্টার মাইন্ড ছিলো মেজর জিয়ার ছেলে তারেক রহমান।
২১ শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় আইভি রহমানসহ আরও অনেকেই নিহত হয়। এই আগষ্টের নির্মম হত্নাকান্ডে নিহত সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। তিনি আরও বলেন এই করোনা মহামারীতে আমি ৫ হাজার অসহায় পরিবারের পাশে ছিলাম। চলমান লকডাউনে এক হাজার পরিবারকে নগদ অর্থ সহায়তা দিয়েছি। এভাবেই বঙ্গবন্ধুর সুন্দর চিন্তা আদর্শ,ও স্বাধীনতার চেতনা নিয়ে সারাজীবন মানুষের পাশে থাকতে চাই। আমার জন্য দোয়া চাই। আমি দীর্ঘ ২৩ বছর যাবৎ আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে আসছি বাকী জীবনটাও এই দলের কর্মী হিসাবে থাকতে চাই। আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতি করি। তাঁর আদর্শ বুকে ধারন করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে হৃদয়ে আঁকড়ে ধরে সাম্যের কথা বলতে চাই সাম্যের পথে চলতে চাই।
মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনের ইশতিহার গ্রামকে ডিজিটাল গ্রামে পরিনত করতে চাই এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমানে অংশ গ্রহনের সুযোগ চাই আমার ইউনিয়ন বাসীর কাছে। আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করে তিনি।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন
৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কবির হোসেন।
শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান রাকিব,
উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক মাজহকমারুল ইসলাম জুয়েল, ওমর ফারুক আলোকিত এই বাংলাদেশ সংগঠনের গাজীপুর জেলা সভাপতি সাব্বির আহমেদ, ৪ ও ৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান, রাব্বি আহমেদ সহ আরও অনেকেই।

Check Also

গাজীপুরে সকল ইউনিয়ন ও পৌরসভা পর্যায়ে পরিক্ষামূলক গণটিকার উদ্ভোদন।

গাজীপুরে সকল ইউনিয়ন ও পৌরসভা পর্যায়ে পরিক্ষামূলক গণটিকার উদ্ভোদন। গাজীপুর প্রতিনিধিঃ অদৃশ্য করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: