শুক্রবার , জুন ১৮ ২০২১
Home / সারা দেশ / জীবন যোদ্ধার মুখের হাসি ফিরিয়ে দিলেন মানব প্রেমিক আকরাম

জীবন যোদ্ধার মুখের হাসি ফিরিয়ে দিলেন মানব প্রেমিক আকরাম

  • নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • বসন্ত সবে শেষ গ্রীষ্মের ১ম রৌদ্রময় উত্তপ্তদিন, প্রচন্ড গরমে গলা শুকিয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছিলো বেলা যেনো এখনো শেষ হইনি ক্লান্ত শরীর নিয়ে একটু বিশ্রাম ও শান্তির অবকাশ খোঁজতে মানিক বসেছিলো রাস্তার পাশেই একটি গাছের নিচে। কিন্তু কে জানতো এই বিশ্রাম ই জীবনে কাল হয়ে দাঁড়াবে, কেড়ে নিবে জীবনের শেষ স্বপ্নটাকে!
  • দিনটি ছিলো গত বৈশাখ মাসের রৌদ্রময় ১ম বাঙালি ঐতিহ্যের এক আনন্দে মাখা একটি দিন, পহেলা বৈশাখ । পান্তা ইলিশ কই? পান্তা খুঁজতেই যে দিন পাড় হয়ে যায় একজন সল্প আয়ের যোদ্ধার।

    জীবিকা যোদ্ধার নাম মানিক,
    এক ছেলে, দুই মেয়ের বাবা। সবাই লেখাপড়া করে। বাড়ি কিশোরগঞ্জ হলেও দীর্ঘদিন পরিবার নিয়ে বসবাস তার গাজীপুর সিটির উত্তর ছায়াবীথি এলাকায়।

    কিস্তিতে নেওয়া একটি রিক্সা ছিল তার উপার্জন ও বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন।
    তেমই এক জীবিকা যোদ্ধা মানিক পূর্বের ন্যায় ঐ দিনও সকাল সকাল রিক্সা নিয়ে বেরিয়ে ছিলেন রাজ পথে, জীবিকার সন্ধানে। সারাদিন ক্ষ্যাপ মেরে বিকেল ছুই ছুই শরীরটা অনেকটাই ক্লান্ত মনের একটু ভাবনা রিক্সাটি রেখে একটু জিরিয়ে নিই। মানিক ক্লান্ত অবসন্ন দেহে একটু অনমনা হয়েছিলেন কিছু সময়ের জন্য। কে জানতো এই ক্লান্তি জীবনে কাল হয়ে দাঁড়াবে।

    হঠাৎ পিছনে ফিরে দেখে তার উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন সদ্য কিস্তিতে নেওয়া রিক্সাটি উধাও।

    জীবিকার অন্যতম বাহন হারিয়ে কাঁন্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি। রাস্তায় গড়াগড়ি আর আর্ত চিৎকারে বাতাস ভারী হয়ে উঠে।আশপাশের বাসা বাড়ি থেকেও শোনা যায় তার বুকে জমে থাকা কষ্ট ও আর্তনাদের সকরুণ কাঁন্নার রোল।

    পথচারি, আশপাশের মানুষ অনেকেই ছুটে এলেও কেউ সত্যিকারের সমব্যথী হয়ে তার পাশে দাড়াননি। সাম্যের গান গেয়েই ফিরে যায় সবাই।

    তখনই আল্লাহর ইচ্ছায় এক মানব প্রেমিক মানবতার উজ্জ্বল নক্ষত্রের উদয় হয় সেখানে। রিক্সাওয়ালা মানিকের আর্তনাদ পৌঁছে মানবতার উজ্জ্বল নক্ষত্র দুঃখী মানুষের আস্থা ও নিরাপত্তার স্থান অসহায় মানুষদের বন্ধু আকরাম হোসেন বাদশার কানে। তিনি তখনও নামাজে। কোন রকম মাগরিবের নামাজ শেষ করে ছুটে যান তার বাসার অদুরে নিজের অফিসের দিকে। একটাই কথা কে জেনো ডাকছে আমায় ওই পথ থেকে কোনো একজনের আর্তচিৎকার ভেসে আসছিলো তার কানে। গিয়ে শুনতে পায় একজন জীবিকা যোদ্ধা মানিকের কাহিনি। কিস্তিতে নেওয়া শেষ অবলম্বন টুকু নাকি কেউ কেড়ে নিয়েছে!

    দেখতে পায় অসহায় রিক্সাওয়ালা মানিক তার জীবনের ঠিকানা সদ্য কিস্তিতে কেনা রিক্সাটি হারিয়ে ফেলে রাজপথে গড়াগড়ি খাচ্ছেন বিদির্ণ, অনিশ্চিত চোখে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের কথা ভেবে।

    মানবিক আকরাম তাৎক্ষণিক মানিককে ডেকে সব কিছু জেনে একটি নতুন রিক্সা তৈরি করে দিতে ম্যাকনিক্স ডেকে এনে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে নতুন রিক্সা তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহন করেন।

    সেই রিক্সাটি তৈরি শেষে ২১/০৪/২০২১ খ্রি. রোজ বুধবার অদ্য বিকেলে একটু আকরাম হোসেন বাদশা মানিকের হাতে নতুন রিক্সাটি তুলে দেন সেই জায়গায়, যেখানে মানিক তার জীবনের হাসি হারিয়ে ফেলেছিলেন। সেখান থেকেই আবার মুখের হাসি ফিরিয়ে দিলেন আল্লাহর ইচ্ছাই মানবতার ফেরিওয়ালা আকরাম হোসেন বাদশা।

    অজানা এক ঘাতক ভাইরাসের ভয়াল থাবায় পুরো পৃথিবী জুড়ে যখন নেমে এসেছে অর্থনৈতিক স্থবিরতা সেখানে বাংলাদেশ নামক ১৭ কোটি মানুষের ভূখণ্ডের কি অবস্থা তা প্রায় সকলেরই জানা। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের দ্বিতীয় ধাপে, কঠিন বিধি নিষেধের চাপে পুরু দেশটাই যেখানে থমকে আছে। সেখানে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের মাঝেও নেমে এসেছে বরফের ন্যায় স্থবিরতা। লকডাউন কে পিছনে ফেলে প্রতিনিয়ত করতে হচ্ছে করোনার সাথে যুদ্ধ ছুটতে হচ্ছে জীবিকার সন্ধানে। এমন মানুষগুলোর পাশে থেকে তাদের মুখে উজ্জীবিত হাসি ফোটানোর আশায় প্রতিনিয়ত রাজপথে হেটে বেড়াচ্ছেন শ্রীপুরের মানবতার দেদীপ্যমান নক্ষত্র অসহায় মানুষের আস্থা ভরসার প্রতিক মানবিক কণ্ঠস্বর আকরাম হোসেন বাদশা। আজ তিনি মানিক নামক ওই জীবন যোদ্ধাকে একটি নতুন রিক্সাই শুধু প্রদান করেননি তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন একটি পরিবারের স্বপ্ন,ইচ্ছা আশা আকাঙ্ক্ষা ও বেঁচে থাকার অবলম্বন।পাশাপাশি তাদের অনিশ্চিত জীবনে সুযোগ করে দিয়েছে পরিপূর্ণ একটি চাঁদের আলো দেখতে।

Check Also

তাহিরপুরে মদ্যপান অবস্থায়  ইউপি সদস্য কর্তৃক ইমাম লাঞ্চিতের ঘটনা! আলোচনায় সমাধান

কামাল হোসেনঃ সুনামগঞ্জ( প্রতিনিধি) সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য হাসান মিয়া কর্তৃক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: