বৃহস্পতিবার , আগস্ট ৫ ২০২১
Home / সারা দেশ / সাহায্য করুন !

সাহায্য করুন !

ফেসবুক থেকে সংগৃহীত : ৩৫ বছর ধরে জন্ম প্রতিবন্ধী ছেলের পস্রাব পায়খানা পরিস্কার করে আসছে বয়স্ক এক ‘মা’ । আসুন আমরা সবাই এই মা’কে সম্মান করি । কিশোরগঞ্জ জেলা , হোসেনপুর উপজেলা, পৌরসভার কাইচমা গ্রামের ৩৫ বছর বয়স্ক জন্ম প্রতিবন্ধী জালালের জীবন চলছে একটি ছোট্ট খুপরি ঘরের চৌকির উপর ।

জন্মের পর থেকেই জালালের কোমড়সহ নীচ পর্যন্ত এবং ডান হাতসহ ডানপাশ অবশ । শুধু মাত্র বুক , মাথা ও বাম হাতটিতে তার সামান্য পরিমাণ শক্তি আছে কোন কথাও বলতে পারে না । আর এই ৩৫ বছর ধরেই মা ছবিলা খাতুন তার প্রতিবন্ধী ছেলের পস্রাব পায়খানা পরিস্কার করে আসছেন অবলীলায় ।

প্রতিবন্ধী জালালের বাবা মারা গেছেন অনেক আগেই । তাদের নেই কোন নিজস্ব সম্পত্তি । ঐ গ্রামের সাবেক আব্দুল হাই মেম্বারের জায়গায় একটি ছোট্ট খুপরি ঘর করে প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে বসবাস করেন ছবিলা খাতুন । পরের বাড়ীতে কাজ করে থাকেন ছবিলা খাতুন , কোন কাজ না থাকলে মাঝে মাঝে ভিক্ষাও করেন তিনি নিজের ও ছেলের ভরনপোষণের জন্য ।

প্রতিদিন সকালে ছেলের বাম হাতটা চৌকির পায়ার সাথে বেদে অপরের বাড়ীতে কাজে অথবা ভিক্ষা করতে বাহির হন তিনি । পড়ন্ত বিকালে কাজ শেষে ক্লান্ত শরীরে মা ছবিলা খাতুন এসে দেখেন ছেলে পস্রাব পায়খানা করে একাকার হয়ে আছে । সব সময় পস্রাব পায়খানার একটা বিশ্রী আশটে গন্ধ থাকায় ঘরেও আসে না কেউ । ছবিলা খাতুন প্রথমে ছেলের পস্রাব পায়খানা পরিস্কার করে তারপর চৌকির উপরেই পরম মমতায় গোসলের মত করে ছেলের পুরো শরীরটা মুছে দেন । ছেলেকে তিনবেলা খাওয়াতে হয় নিজের হাতেই ।

অনেক সময় ছেলে ঘরের বাহিরে যেতে চায় , তাই ছবিলা খাতুন তাকে ঘরের বাহিরে নিয়ে বসে মা-ছেলে গল্প করে । যে গল্পের ভাষা একমাত্র তারা দুই মা-ছেলেই বোঝেন । খাবার ভাল না হলে মায়ের সাথে গোস্বাও করে প্রতিবন্ধী ছেলেটি । মা তার ভাষা বুজতে পারে আর তাই নিজের ঘরে কোন কিছু না থাকলে প্রতিবেশী কারো ঘর থেকে চেয়ে এনে ছেলের আবদার পুরন করে মা ।

কিছু দিন আগে আমি কিশোরগঞ্জ গিয়েছিলাম একটি মেয়ে পথশিশুকে তার পরিবারের কাছে ফেরত দিতে । সেখানে গিয়ে সন্ধান পাই এই অদম্য মা’য়ের । সেই দিন আমার কাছে বেশী কিছু ছিল না তারপরও এই মা’কে আমি আমার সর্বোচ্চ সম্মান করে এসেছি । অনেক আলাপের পর জানতে পেরেছি তার প্রায় বিশ হাজার টাকা ঋনও আছে । যে ঋন করে তিনি ছেলের জন্য ঘর , একটি চৌকি এবং একটি তোশক বানিয়েছিলেন । প্রতিবন্ধী ছেলের প্রতি মায়ের এই ভালবাসা দেখে আমি সেই দিনই নিয়ত করেছিলাম অদম্য এই মায়ের বিযয়টি আমি আমার ফেসবুক বন্ধুদের কাছে উপস্থাপন করব ।

সন্তানের প্রতি মায়ের এ অদম্য ভালবাসা পৃথিবীর কোন কিছুর বিনিময়ে তুলনা করা সম্ভব নয় । কিন্তু আমারা চাচ্ছি এই মা’কে একটি অটো ভেনগাড়ী কিনে তাকে উপহার দিব । যেন সে অটো ভেনগাড়ীর দৈনিক ভাড়ার টাকা দিয়ে তিনি ছেলেকে নিয়ে ডালভাত খেয়ে চলতে পারেন ।

ভেটারী চালিত একটি অটো ভেনগাড়ীর বর্তমান বাজার মুল্য 44000/ হাজার টাকা । এক অদম্য মায়ের সম্মানার্থে আসুন আমরা সবাই তার পাশে দাড়াই ।

সহযোগিতা পাঠানোর ঠিকানা ঃ-

আব্দুল মালেক ,

01766 583646 বিকাশ পারসোনাল

01766 583646 ডাচ্ বাংলা রকেট

01766 583646 নগদ

Check Also

মাওনা চৌরাস্তায় ঈদকে সামনে রেখে ব্যাপক চাঁদাবাজি!

নিজস্ব প্রতিবেদক। গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার শ্রীপুর পৌর এলাকার মাওনা চৌরাস্তা ঈদকে সামনে রেখে কিছু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: